আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয়ে সিরিজে টিকে রইল বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক : অবশেষে দুর্দান্ত এক জয় পেল বাংলাদেশ। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল। আর দ্বিতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের সাথে বাংলাদেশ হেরে গিয়েছিল ৪ উইকেটে। আর তাই সিরিজে টিকে থাকার জন্য বাংলাদেশ জয়ের লক্ষ্যেই মাঠে নেমেছিল। আর টাইগারদের দুর্দান্ত জয়েই সিরিজে টিকে রইল বাংলাদেশ। শুক্রবার আয়ারল্যান্ডের ডাবলিনে ত্রিদেশীয় সিরিজের ৪র্থ ও নিজেদের ৩য় ম্যাচে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টস হেরে প্রথমে ফিল্ডিং নিয়েছিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। বাংলাদেশের অন্যতম সেরা পেসার রুবেল হোসেনকে দিয়েই গতকাল বোলিং আক্রমণ শুরু করেছিলেন ম্যাশ। আর টস হেরে অধিনায়কের ফিল্ডিং নেয়াকে যথার্থ প্রমাণ করলেন ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া- নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ম্যাচের শেষ দিকে দারুণ বোলিং করা টাইগার পেসার রুবেল হোসেন। বাগেরহাট থেকে উঠে আসা রুবেল আয়ারল্যান্ডের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান জয়েসকে প্রথম ওভার রান শূন্যই রাখেন। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে অধিনায়ক মাশরাফি বল তুলে দেন গত ম্যাচের টাইগারদের সবচেয়ে সফল বোলার কাটার মাস্টার মুস্তাফিজকে। সাতক্ষীরার এ ক্রিকেট সেনসেশন নিজের প্রথম ওভার ও আয়ারল্যান্ডের ইনিংসের ২য় ওভারে বোলিং করতে এসেই নিজের তৃতীয় বলেই পল র্স্টালিংকে সাব্বিররের ক্যাচ বানিয়েই প্যাভিলিয়নের পথ ধরালেন। র্স্টালিং যখন ক্রিজ ছাড়লেন তখন স্বাগতিকদের স্কোরবোর্ডে কোন রান জমা হয়নি। সে সময় আয়ারল্যান্ড পরিণত হয় ১.৩ ওভারে ০/১।
আয়ারল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা খেললেন ৯ বল কিন্তু স্কোর বোর্ডে কোন রান নেই। দেখতে খুবই চমৎকার লাগল বাংলাদেশের বোলারদের বোলিং বিশ্লেষণ। দ্যা ফিজের পর বোলিংয়ে আসলেন অধিনায়ক ম্যাশ। এরপর বাংলাদেশের বোলিং বিভাগে ৪র্থ অস্ত্র হিসেবে মাশরাফি আনলেন তরুণ অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে। তিনি এসেই কট এন্ড বোল্ড করলেন আয়ারল্যান্ডের অধিনায়ক উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডকে । এ পর্যায়ে স্বাগতিকদের সংগ্রহ ৮.৩ ওভারে ২ উইকেটে ৩৭ রান। ওয়ানডের সহ-অধিনায়ক ও টি-টুয়েন্টিতে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ব্যাটিং ও বোলিং উভয় বিভাগেই ব্যর্থ ছিলেন। কিন্তু আজকের ম্যাচে অধিনায়ক সাকিবকে যখন ৫ম বোলার হিসেবে বোলিং আক্রমণে আনলেন তখন তিনিও হতাশ করেননি ওয়ানডেতে তাঁর স্কিপারকে। সাকিব নিজের ২য় ওভারে ও আয়ারল্যান্ডের ইনিংসের ১৪.২ ওভারে বেলবিরনিকে সরাসরি বোল্ড করলে স্বাগতিকরা ৬১ রানে ৩ উইকেট হারায়। গত ১৭ মে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের মত অসাধারণ বোলিং করা মুস্তাফিজ গতকাল ৯ ওভারে ২৩ রানের খরচায় ২ মেডেনসহ ৪ উইকেট নেন। মূলত: তাঁর নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে দিশেহারা হয়েই স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ১৮১ রানেই অলআউট হয়ে গেছে। গতকালের এ ম্যাচে মেহেদী হাসান মিরাজের জায়গায় অভিষেক ম্যাচে খেলতে নেমে আলো ছড়িয়েছেন সানজামুল ইসলাম। বোলিং করতে এসেই নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট নিয়েছেন এ স্পিনার। এ অভিষিক্ত বোলার ৪৬ রান করা আইরিশদের সর্বোচ্চ স্কোরার ওপেনার জয়েসকেও ফেরান। শেষমেষ তিনি ৫ ওভারে ২২ রানের বিনিময়ে নেন দু’উইকেট। এছাড়া দলনেতা ম্যাশ ১৮ রানের বিনিময়ে নেন ২ উইকেট। তাছাড়া রুবেল কোন উইকেট না পেলেও প্রথমদিকে দুর্দান্ত বল করেছিলেন। তিনি বাংলাদেশের বোলিং ওপেন করতে এসে নিজের প্রথম ওভারটি মেডেন দিয়েছিলেন। বাংলাদেশের দুর্দান্ত বোলিংয়ে দিশেহারা হয়ে ১৮১ রানেই অলআউট স্বাগতিকরা। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে তামিম, সৌম্য ও সাব্বিরের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডকে ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারাল বাংলাদেশ। সৌম্য ৬৮ বলে ৮৭ রানের এক অসাধারণ ইনিংস খেলেন।

Leave a Reply