‘ইমাম-মুয়াজ্জিনরা সমাজের আলোকবর্তিকা–ফরিদপুরের ডিসি

ভয়েস অব ফরিদপুর নিউজ।। ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেছেন, ইমাম-মুয়াজ্জিনরা সমাজের আলোকবর্তিকা। ইমাম রাতারাতি তৈরী হয় না। মানুষকে সত্য ও ন্যায়ের পথ দেখানোর জন্য নিজেকে প্রস্তুত করার পরেই ইমাম হয়। তিনি আজ সোমবার  কোভিড-১৯ সংক্রমন পরিস্থিতিতে প্রশিক্ষন প্রাপ্ত ইমাম সাহেবদের সাথে মতবিনিময় ও ৫ দিনব্যাপি রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ইমাম-মুয়াজ্জিন হওয়া সবার ভাগ্যে থাকে না। যথার্থ মানুষেরাই কেবল ইমাম মুয়াজ্জিন হতে পারেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, সোনার মানুষ গড়ার কারিগর হচ্ছেন ইমাম ও শিক্ষকবৃন্দ। কিন্তু একটি দুষ্ট চক্র ইমামদের পোষাক এবং পবিত্র গ্রন্থের বিভ্রান্তমূলক ব্যাখ্যা দিয়ে মানুষকে ভুল পথে পরিচালিত করে জঙ্গি হিসেবে তৈরী করে। সমাজে অশান্তি সৃষ্টি করে। এদের থেকে সতর্ক থাকতে হবে।

অতুল সরকার বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থার আধুনিকায়ন করেছেন। তিনি মাদ্রাসার শিক্ষক ও সাধারণ শিক্ষকদের মধ্যে বেতনের সমতা করেছেন। কওমী মাদ্রাসার সর্বোচ্চ ডিগ্রি দাওরায়ে হাদিসকে মাস্টার্স সমমান করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। সরকার ইমাম মুয়াজ্জিনদের ভাল অবস্থানে রাখার জন্য সব সময় কাজ করছে বলে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার উল্লেখ করেন।

 

জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ইমাম প্রশিক্ষন একাডেমীর পরিচালক মওলানা আনিছুজ্জামান শিকদার, অনুবাদ ও সংকলক বিভাগের উপপরিচালক মওলানা মুসতাক আহমেদ, প্রশিক্ষণ একাডেমীর ইমাম মওলানা মোঃ জাকির হোসেন। এতে আলোচক ছিলেন, ফরিদপুর শাহ ফরিদ জামে মসজিদের খতিব হাফেজ মওলানা আবুল কালাম আজাদ।

জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সকাল ১০ টায় অনুষ্ঠান শুরু হয়। শুরুতে কোরআন তেলওয়াত করেন শাহ ফরিদ জামে মসজিদের ইমাম মওলানা হুসাইন আহমাদ,  নাতে রাসুল তেলওয়াত করেন ধুলদী বাজার জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ মোঃ আব্দুর রহমান, স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন ফরিদপুর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক শেখ আকরামুল হক। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপন করেন ফরিদপুর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ আশরাফ আলী।

অনুষ্ঠানে ৫ জন ইমামের মাঝে সুদমুক্ত ঋণ ও ৫ জন ইমামের মাঝে আর্থিক সাহায্য তুলে দেয়া হয়। একই সাথে ২ শত ইমামকে ৫ দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ শুরু হয়।

Leave a Reply