উপমহাদেশের প্রখ্যাত রাজনীতিবীদ মোহন মিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল ॥ ভয়েস অব ফরিদপুর রির্পোট ॥

ভয়েস অব ফরিদপুর রির্পোট ॥
উপমহাদেশের প্রখ্যাত রাজনীতিবীদ ও মুসলিম জাগরণের অন্যতম পথিকৃত মরহুম ইউসুফ আলী চৌধুরী মোহন মিয়ার ৪৬ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে রবিবার বিকেলে শহরের কমলাপুরে ময়েজউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আলোচনা সভা ,মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্টিত হয়েছে।
মোহন মিয়ার জেষ্ঠ পুত্র, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ এ সভায় সভাপতিত্ব করেন। মোহন মিয়া স্মৃতি সংসদের সম্পাদক অধ্যাপক এবিএম সাত্তারের সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির কেন্দ্রিীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য শাহ মোঃ আবু জাফর, রাজবাড়ি-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য নাসিরুল ইসলাম সাবু, জামায়াতের নেতা সামসুল ইসলাম আল বরাটি, বিএনপি নেতা এএফএম কাইয়ুম জঙ্গি, আব্দুল লতিফ মিয়া, অ্যাডভোকেট আলী আশরাফ নান্নু, অ্যাডভোকেট গোলাম রব্বানী ভুইয়া রতন ,অ্যাডভোকেট আশুতোষ টিকাদার, ফরিদপুর জেলা জাসাস সভাপতি মোঃ জিল্লুর রহমআন জাহিদ, শহর বিএনপির সংগঠনিক সম্পাদক এমাদাদুল হক এমদাদ , সমাজ সেবকমোঃ জাফর সাদেক প্রমুখ।
বক্তাগণ ইউসুফ আলী চৌধুরী মোহন মিয়াকে একজন ‘কিং মেকার রাজনীতিবীদ’ হিসেবে উল্লেখ করেন। তারা বলেন, মোহন মিয়া ছিলেন একজন মানবতাবাদী অসাম্প্রদায়িক রাজনীতিবীদ। নিজে জমিদার হয়েও এদেশের পশ্চাদপদ জনসামজের জন্য তিনি আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন। তিনি ছিলেন একজন মহান দাতা। তৎকালে পিছিয়ে পড়া মুসলিম জনগোষ্ঠির মাঝে শিক্ষা বিস্তারে তিনি একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ছাত্রাবাস গড়ে তুলেন। হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা নিরসণে তিনি দেশের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে ছুটে বেরিয়েছেন। মোহন মিয়ার কারণে ফরিদপুরে কখনোই সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি হয়নি। এই মহান রাজনীতিবীদের জীবনী থেকে নতুন প্রজন্মকে শেখার অনেক কিছুই রয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতিমোঃ জাফর হোসেন বিশ্বাস,অর্থ-সম্পাদক এবি সিদ্দিকী মিতুল,বন ও পরিবেশ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিনান, যুবদল নেতা শহিদুল ইসলাম ভিপি শহিদ প্রমুখ।

Leave a Reply