চরভদ্রাসনে ৪১ লক্ষ টাকার কর্মসৃজন প্রকল্প উদ্বোধন

ভয়েস অব ফরিদপুর রির্পোট ॥
ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা সদরে বালিয়া ডাঙ্গী গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা রোকন উদ্দিন মোল্যার বাড়ির সামনের কাচা রাস্তায় মঙ্গলবার সকাল ৯ টায় ৪০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্প উদ্বোধন করা হয়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান এ.জি.এম. বাদল আমিন, ভাইস চেয়ারম্যান তানজিনা আক্তার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মখর্তা মানস বোস, উপ-সহকারী প্রকৌশরী সামসুন নাহার ও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আজাদ খান উপস্থিত থেকে ৪০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্প শুভ উদ্বোধন গোষনা করেন। এ প্রকল্পর আওতায় একযোগে উপজেলায় মোট ৮টি কাচা রাস্তা পূনঃনির্মান কাজ আরম্ভ করা হয়। প্রতিটি রাস্তা এ বছর বন্যা বিধ্বস্ত হয়ে জনচলাচল অযোগ্য হয়ে পড়েছিল। তাই রাস্তাগুলো পূনঃনির্মানের জন্য ৪০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্পর আওতায় মোট ৪০ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকা ব্যয় বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের জন্য মোট ৫১২ জন শ্রমিক নিয়োজিত রয়েছে বলেও জানা যায়।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অধিদপ্তর সূত্র জানান, এ বছর ৪০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্পর আওতায় উপজেলা সদর ইউনিয়নের বালিয়া ডাঙ্গী গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা রোকন উদ্দিন মোল্যার বাড়ী হইতে বালিয়া ডাঙ্গী গ্রামের রোকন মাষ্টারের বাড়ী পর্যন্ত কাচা রাস্তা নির্মান ও পূনঃনির্মানের জন্য ৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা ব্যয় বরাদ্দ দিয়ে ৮৫ জন শ্রমিক নিয়োজিত করা হয়েছে। এছাড়া আঃ গফুর মৃধা ডাঙ্গী গ্রামের জেহের মৃধার বাড়ী হইতে নূরা মৃধার বাড়ী পর্যন্ত কাচা রাস্তা নির্মান ও পূনঃনির্মানের জন্য ৬ লাখ টাকা ব্যয় বরাদ্দ দিয়ে ৭৫ জন শ্রমিক নিয়োজিত করা হয়েছে। উপজেলার গাজীরটেক ইউনিয়নের চরঅমরাপুর বেড়িবাঁধ হতে মোকারম প্রামানিকের বাড়ী পর্যন্ত ভায়া মিজান প্রামানিকের বাড়ী হইতে সেক মিজানের বাড়ী পর্যন্ত রাস্তা নির্মান ও পূনঃনির্মানের জন্য ৪ লাখ ৯৬ হাজার টাকা ব্যয় বরাদ্দ দিয়ে ৬২ জন শ্রমিক নিয়োজিত করা হয়েছে। একই ইউনিয়নের মধু ফকিরের ডাঙ্গী গ্রামের বিল্লাল বেপারীর বাড়ী হতে বেড়িবাঁধ পর্যন্ত ভায়া জয়দেব সরকারের ডাঙ্গী গ্রামের বারেক ফকিরের বাড়ী পর্যন্ত রাস্তা নির্মান ও পূনঃনির্মানের জন্য ৬ লাখ টাকা ব্যয় বরাদ্দ দিয়ে ৭৫ জন শ্রমিক নিয়োজিত রয়েছে। চরঝাউকান্দা ইউনিয়নের হুকুম আলী চৌকদার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ও ভিটিতে মাটি ভরাটের জন্য ৪ লাখ ৩২ হাজার টাকা ব্যয় বরাদ্দ দিয়ে ৫৪ জন শ্রমিক নিয়োজিত রয়েছে। উপজেলার চরহরিরামপুর ইউনিয়নের হাজার বিঘা গ্রাম থেকে আঃ হাই খান হাট পর্যন্ত রাস্তা নির্মান ও পূনঃনির্মানের জন্য ৬ লাখ টাকা ব্যয় বরাদ্দ দিয়ে ৭৫ জন শ্রমিক নিযোগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ওই ইউনিয়নের চরশালেপুর গ্রামের বন্যা বিধ্বস্ত রাস্তা নির্মান ও পূনঃনির্মানের জন্য ৪ লাখ ৯৬ হাজার টাকা ব্যয় বরাদ্দ দিয়ে ৬২ জন শ্রমিক নিয়োজিত রয়েছে বলে জানা যায়।

Leave a Reply