প্রথম টি-টোয়েন্টিতে জয় শ্রীলঙ্কার

স্পোর্টস ডেস্ক : শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথমটি ৬ উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের দেওয়া ১৫৬ রানের টার্গেটে ৭ বল হাতে রেখে ও চার উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় লঙ্কানরা। এর আগে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রান করে মাশরাফিরা। এ জয়ের ফলে স্বাগতিকরা ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল। ঝড়ের শুরু উপুল থারাঙ্গার ব্যাটে। এর পর প্রায় পুরো সময়টা দলকে টেনে নিলেন কুসল পেরেরা। সকালে ফিটনেস টেস্টে উতরে একাদশে জায়গা পাওয়া ওপেনার খেললেন দারুণ এক ইনিংস। শ্রীলঙ্কা জিতল ৬ উইকেটে। দুর্দান্ত ইনিংস খেলে দলকে জয়ের কাছে নিয়ে ফিরেছেন কুসল পেরেরা।  বাকি কাজটুকু সেরেছেন সিকুগে প্রসন্ন। ২ ছক্কায় করেছেন ১২ বলে অপরাজিত ২২ রান। উইকেটে গিয়ে প্রথম বলেই চার মেরে দলের জয় এনে দিয়েছেন থিসারা পেরেরা। শ্রীলঙ্কা জিতেছে ৭ বল আগেই।
২ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সফলতম বোলার মাশরাফি। বাংলাদেশ অধিনায়ক খেললেন শেষের আগের ম্যাচ। কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় মাঠে নামার কথা ছিল দুই দলের। তবে, দুই দলের জাতীয় সংগীতের পর পরই বৃষ্টি নামে কলম্বোয়। তাতে ম্যাচ শুরুতে বিলম্ব হয়। তবে, কোনো ওভার কাটা হয়নি। টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্তে টাইগারদের হয়ে ওপেনিং করতে নামেন তামিম ইকবাল এবং সৌম্য সরকার। ইনিংসের প্রথম ওভারেই বিদায় নেন তামিম। লাসিথ মালিঙ্গা দ্বিতীয় বলেই বোল্ড করে ফিরিয়ে দেন তামিমকে। প্রথম ওভারে এক উইকেট হারিয়ে ৬ রান তোলে বাংলাদেশ।
ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলেই রান আউট হন সাব্বির রহমান (১৬)। দলীয় ৫৭ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি সৌম্য। ব্যক্তিগত ২৯ রানে বিদায় নেন তিনি। ২০ বলে তিনটি চার আর একটি ছক্কায় ইনিংস সাজিয়ে ভিকুম সঞ্জয়ার বলে পেরেরার তালুবন্দি হন সৌম্য। দলীয় ৫৭ রানেই তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ। নমব ওভারের দ্বিতীয় বলে আসেলা গুনারন্তের ডেলিভারিতে বোল্ড হন মুশফিকুর রহিম। ৯ বলে এক চারে ৮ রান করেন তিনি। দলীয় দ্বাদশ ওভারের প্রথম বলে আউট হন সাকিব আল হাসান। সেকেগু প্রশন্নর বলে গুনারতেœকে ক্যাচ দেওয়ার আগে ১৫ বলে ১১ রান করেন বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার। ১৯তম ওভারে মালিঙ্গার প্রথম বলেই বোল্ড হন মাহমুদল্লাহ রিয়াদ। ২৬ বলে তিন চারে ৩১ রান করেন তিনি। ৩০ বলে তিনটি চারের সাহায্যে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ৯ রানে অপরাজিত থাকেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। ১৫৬ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো করে শ্রীলঙ্কা। তবে নিজের পর পর দুই ওভারে দুটি উইকেট তুলে বাংলাদেশ শিবিরে স্বস্তি এনে দেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। উপল থারাঙ্গাকে ২৪ রানে মোস্তাফিজের ক্যাচ ও দিলশান মুনাবেরাকে ৮ রানে নিজেরই ক্যাচ বানিয়ে ফেরান তিনি। ১৫তম ওভারের তৃতীয় বলে সাব্বির রহমানের থ্রোতে রান আউট হয়ে ফেরেন আসেলা গুনারতেœ। তিনি ১৮ বলে ১৭ রান করেন। সর্বোচ্চ ৭৭ রান করা ওপেনার কুশাল পেরেরাকে ফেরান তাসকিন আহমেদ। ৫৩ বলে ৯ চার ও একটি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান তিনি। শেষ দিকে প্রশন্ন ২২ ও থিসারা পেরেরা ৪ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। এই সিরিজের মধ্যদিয়ে টি-টোয়েন্টি থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন মাশরাফি। স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই ম্যাচের আগে পর্যন্ত ৫টি টি-২০ ম্যাচ খেলে মাত্র ১টিতে জয়ের শেষ হাসি হেসে মাঠ ছাড়তে পেরেছিল বাংলাদেশ। বাকি ৪টি জয়ই ছিল লঙ্কানদের থলিতে। এই ম্যাচের আগে লঙ্কানদের বিপক্ষে টাইগারদের একমাত্র টি-টোয়েন্টি জয়টি এসেছিল ২০১৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকায়। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এশিয়া কাপের পঞ্চম ম্যাচে লঙ্কানদের ২৩ রানে হারিয়ে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে দলটির বিপক্ষে প্রথমবারের মতো জয়োল্লাস করেছিলেন মাশরাফিরা।
বাংলাদেশ দল : তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, সাইফুদ্দিন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদ।
শ্রীলঙ্কা দল : উপুল থারাঙ্গা, দিলশান মুনাবিরা, গুনারতেœ, চামারা কাপুগেদারা, কুশল পেরেরা, থিসারা পেরেরা, সেকুগে প্রসন্ন, মিলিন্দ সিরিবর্ধনে, লাসিথ মালিঙ্গা, ভিকুম সঞ্জয়া।

Leave a Reply