ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে চোর সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত হেলালের লাশ মিলল নদীতে, পরে পুলিশের সহায়তায় দাফন

চরভদ্রাসনথেকে লিয়াকত আলী লাবলু ঃ
চরভদ্রাসন উপজেলার গাজীরটেক ইউনিয়নের চর হোসেনপুর গ্রামে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে জনতার হাতে গণপিটুনিতে নিহত হেলাল খাঁ (৩০)র লাশ মিলল নদীতে।
শনিবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার হরিমারপুর ইউনিয়নের জাকেরের সুরার ভাঙ্গার মাথায় পদ্মা নদীতে ভাসতে দেখা যায়। পরে ৯টার দিকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে এলাকাবাসীর সহায়তায় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে দাফন দেয়।
নিহত হেলালের বাবা মোসলেম খাঁ ও মা শুকুরী বেগম  এক বছর আগে পদ্মা নদীর পশ্চিম দিকে হরিমারপুর ইউনিয়নের জাকেরের সুরা এলাকার কলকুঠিতে  বসবাস করত। তবে তারা বর্তমানে এই পরিবারটি পদ্মা নদীর পূর্বপাড়ে ভগবানের চর এলাকায় বসবাস করে।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী, এলাকাবাসী ও পুলিশের সাথে কথা বলে জানা যায়, ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হওয়ার পর শুক্রবার রাত আটটার দিকে হেলালের বাবা মোসলেম খাঁ ও মা শুকুরী বেগম চরভদ্রাসন থানা হতে হেলালের মরদেহটি গ্রহণ করেন। রাতেই দাফনের জন্য জাকেরের সুরা ভাঙ্গার মাথায় নিয়ে যায়। কিন্তু এলাকাবাসী নিহত হেলালের জানাজা পড়তে এবং এলাকায় কবর দিয়ে সহযোগিতা করেনি। তখন এলাকাবাসীর উপর ক্ষুব্ধ হয়ে হেলালের বাবা মোসলেম বলেন,  আমার ছেলের যেহেতু দাফনের জায়গা হলো না তাহলে তার লাশটি নদীতে ফেলে দাও। এই কথার পর ওই এলাকার কতিপয় ব্যাক্তি লাশটি পদ্মা নদীতে ফেলে দেয়।
হেলালের মা শুকুরী বেগম মুটোফোনে বলেন,  আমরা লাশ জানাজা ও দাফনের জন্য জাকেরের সুরা ভাঙ্গার মাথা এলাকায় নিয়ে গেলে এলাকার লোকজন ওই এলাকার গোরস্থানে জানাজা পরিয়ে দাফন করতে দেয়নি। পরে হেলার বাবা রেগে নদীতে ফেলে দেওয়ার কথা বললে এলাকার লোকজন লাশটি নদীতে ফেলে দেয়।
চরভদ্রসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রামপ্রসাদ ভক্ত বলেন, শুক্রবার রাতে মোসলেম খাঁ গণপিটুনীতে ছেলের নিহত হওয়ার ঘটনায় নিজে বাদী হয়ে চরভদ্রাসন থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে তিনি লাশটি বুঝে নেন। ওসি বলেন, শনিবার সকালে আমরা জানতে পারি ওই এলাকার লোকজন লাশটি কাফন দাফনে কোন সহযোহিতা করে নি এবং লাশটি নদীর পাশে ফেলে রাখা হয়েছে। এ খবর পেয়ে আমরা লাশটির কাফন পড়িয়ে জানাজা দিয়ে জাকেরের সুরা ভাঙ্গার মাথা এলাকায় আরজ খাঁরডাঙ্গি মৃধাবাড়ি কবরাস্থনে দাফন দেই ।
চরভদ্রাস থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রব জানান, সকাল ৯টার দিকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। পরে কাফন পরিয়ে জানাজা দিয়ে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে দাফন দেওয়া সম্পন্ন হয়।
গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে চরভদ্রাসন উপজেলার গাজীরটেক ইউনিয়নের চর হোসেনপুর গ্রামে ইজিবাইক চোর সন্দেহে হেলাল খাঁ (৩০) গণপিটুনিতে নিহত হন।

Leave a Reply