ফরিদপুরে কানের দুলের জন্য জীবন দিতে হলো শিশু পায়েলকে

ভয়েস রিপোর্ট ঃ
ফরিদপুরে ছয় হাজার টাকা দামের কানের দুলের জন্য সাত বছরের এক শিশুকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানা গেছে। এ ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুর সদরের কানাইপুর ইউনিয়নের কোষা গোপালপুর এলাকায়।
আজ রবিবার বেলা ১১টার দিকে ফরিদপুর সদরের কানাইপুর ইউনিয়নের কোষা গোপালপুর এলাকায় রাজ্জাক মোল্লার বাড়ি ঘাট সংলগ্ন কুমার নদ থেকে আরিফা সুলতানা ওরফে পায়েল (৭) নামের ওই শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
পরিবারের দাবি কানে সোনার দুলের জন্য হত্যা করে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে আরিফা সুলতানা পায়েল কে । পুলিশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছে।
পায়েল কোষা গোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা মাংস বিক্রেতা মো. নিজামউদ্দিনের মেয়ে। দুই ভাইবোনের মধ্যে আরিফা ছোট। সে স্থানীয় কোষা গোপালপুর মোয়াজ্জেম মিয়া দাখিল মাদ্রাসার দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী।
পায়েল গত শনিবার বিকেলে তাদের বাড়ির পাশে আহম্মদের বাড়িতে খেলাধুলা করতে যায়। কিন্তু এর পর সে নিখোঁজ হয়ে যায়। ওই দিন সন্ধ্যা ও রাতে বাড়ির আশেপাশে খুঁজে তাকে পাওয়া যায়নি।
রবিবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে প্রতিবেশী আলীম মোল্লা রাজ্জাক মোল্লার বাড়ি ঘাট সংলগ্ন কুমার নদে গোছল করতে গিয়ে এক জোড়া পা ভাসতে দেখে এলাকাবাসীকে খবর দেয়। পরে এলাকাবাসী কুমার নদ থেকে পায়েলের লাশ উদ্ধার করে।
পায়েলের মা সালেহা বেগম জানান, তার মেয়ের কানে আনুমানিক পাঁচ/ছয় হাজার টাকা দামের কানের দুল ছিল। ওই দুল নেওয়ার জন্য তাকে হত্যা করে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়।
এ হত্যার সন্দেহে অঞ্জনা (১২) নামে এক কিশোরীকে আটক করেছে পুলিশ । অঞ্জনা একই গ্রামের জাকির শেখের মেয়ে। অঞ্জনা তার মায়ের সাথে স্থানীয়  আবুল হোসেন জুল মিলে কাজ করে।
পায়েলের মামা আশরাফুল ইসলাম জানান, অঞ্জনা একটি মোবাইল ফোন কেনার জন্য পায়েলের কানের দুল চুরি করে। রবিবার দুপুর ১২টার দিকে অঞ্জনাকে পুলিশ আটক করার পর অঞ্জনার নানীর বাড়ি থেকে পায়েলের কানের দুলটি উদ্ধার করে পুলিশ।
ফরিদপুর কোতয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক নাসির মিয়া জানান, অঞ্জনাকে ফরিদপুর কোতয়ালী থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হযেছে। মৃতের মুখে আচড়ের চিহ্ন রয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফরিদপুর কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজিমউদ্দির আহমেদ বলেন, এ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটিত হয়েছে। ছোট একটি কানের দুলের জন্য জীবন দিতে হয়েছে সাত বছরের পায়েল কে। ওই দুলটি উদ্ধার করা হয়েছে। এটি একটি মর্মান্তিক ঘটনা।

Leave a Reply