ফরিদপুরে ধূলার ক্ষতি থেকে বাঁচাতে মাক্স বিতরণ করলেন সাংবাদিক মাহবুব পিয়াল ॥ভয়েস অব ফরিদপুর

ভয়েস অব ফরিদপুর রির্পোট ॥
চৈত্রের এই ধুলি উড়ানো সময়ে ধুলোর হাত থেকে রক্ষা করার জন্য রিক্সা ও অটো চালক,মটর সাইকেল চালক এবং সড়কে টহলরত ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের মাঝে মাক্স বিতরণ করেছেন শহরের কমলাপুর তেতুলতলা মহল্লার বাসিন্দা, ফরিদপুর প্রেসক্লাবের কালচারাল সেক্রেটারী সাংবাদিক মাহবুব হোসেন পিয়াল ।
২৭ মার্চ মঙ্গলবার বেলা ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত শহরের তেতুল তলার মোড়, টেপাখোলা, সুপার মর্কেট ও ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সামনে রিক্সা চালক, অটোচালক, মটর সাইকেল চালক ও ট্রাফিক পুলিশ মিলিয়ে অন্তত একশ ব্যাক্তির নাক ও মুখ ঢেকে ম্যাক্স পরিয়ে দেন তিনি। এসময় ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মাহবুবুল ইসলাম পিকুল, যুগ্ম সম্পাদক শেখ মনির হোসেন, সাংবাদিক মফিজুর রহমান শিপন, জাকির হোসেন, আবিদুর রহমান নিপু, এসএম তরুন,রাশীদকাজল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
মাহবুব হোসেন পিয়াল বলেন, চৈত্রের এ দাবদাহ মুখর শুস্ক দিনে সড়কগুলো এবং বাতাস ধুলিতে পরিপূর্ণ হয়ে থাকে। এই ধুলি শ্বাসকষ্টসহ জন্য নানা ধরনের ব্যাধির জন্ম দেয়। মানুষের মুখ ও নাক দিয়েই মূলত এ ধুলা শরীরে প্রবেশ করে। এজন্য স্বাস্থ্য সচেতনার অংশ হিসেবে আমি নিজ উদ্যোগে এ কর্মসূচি গ্রহণ করি।
ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালের নাক কান ও গলা বিভাগের জ্যেষ্ট পরামর্শক (সিনিয়র কনসালটেন্ট) উষা রঞ্জন চক্রবর্ত্তী বলেন, ধুলার কারনে শ্বাসকষ্টসহ, নিমুকনিসিস (ফুসফুসে ধুরা আটকে থাকা), ব্রনকাইটিস্ট, সাইনোসাইটিস, রাইনাইটিস (নাকের ভিতরে ধুলি জমে থাকায় ইনফেকশন), ব্রনকিয়াল অ্যাজমাসহ বিভিন্ন জটিল রোগের সৃষ্টি হতে পারে। তিনি বলেন মাক্স পড়লে নাক ও মুখ আটকে থাকার কারনে এসব রোগ পঞ্চাশ ভাগ কমিয়ে আনা সম্ভব। তবে মনে রাখতে হবে একদিন একটি মাক্স ব্যবহার করতে হবে এবং না ধুয়ে সেটি আবার ব্যবহার করা যাবে না।

Leave a Reply