ফরিদপুরে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ; ফরিদপুরে অপরাধী ও দূর্নিতিবাজদের কোন জায়গা নেই

মাহবুব হোসেন পিয়াল;
স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেছেন, আওয়ামীলীগ সরকার জনগনের সরকার। এ সরকার দলমতের উর্ধে জনগনের সেবা করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ফরিদপুরে বিগত ৮ বছর ধরে সব ধরনের অনুদান স্বচ্ছতার সাথে প্রদান করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কবি জসীম উদদীন হলে ঈদ উপলক্ষে অনুদানের চেক বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। ফরিদপুর সদর উপজেলার চেয়ারম্যান খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবর এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি বক্তব্যে আরো বলেন, অনুদান প্রদানের ক্ষেত্রে কোন ধরনের দলমত দেখা হচ্ছে না। প্রকৃত অভাবী ও ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে অনুদান প্রদান করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বিগত ৮ বছরে ফরিদপুরে যে অনুদান হয়েছে তাতে এখন ফরিদপুর কে দেশের মধ্যে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে দেখা হচ্ছে। তিনি বলেন, ফরিদপুর এখন আইনশৃঙ্খলার ক্ষেত্রে সর্বশ্রেষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে। এখানে সন্ত্রাসী চাদাবাজ মাদক সহ সব ধরনের অপরাধ কঠোর হস্তে দমন করা হয়েছে। তিনি বলেন ফরিদপুরে অপরাধী ও দূর্নিতিবাজদের কোন জায়গা নেই। মন্ত্রী আরো বলেন, ২৪৫ কোটি টাকা ব্যায়ে কুমার নদ খননের কাজ শ্রীঘ্রই শুরু হবে। কুমার নদের দুই পারে ৬২টি ঘাটলা নির্মান করে দেওয়া হবে।, যারা সুখে আপনাদের পাশে থেকেছে ফরিদপুরে উন্নয়নের যারা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে তাদেরকে আগামী নির্বাচনে ভোট দেওয়ার আহবান জানান। তিনি বলেন, নৌকায় ভোট দিলে এদেশের উন্নয়ন হবে। জনগনের মুখে হাসি ফুটবে। আর ধানের শীর্ষে ভোট দিলে দেশ আবার পিছিয়ে পরবে। তিনি দেশের উন্নয়নরে আগামী নির্বাচনে নৌকায় মার্কায় ভোট দেওয়ার আহবান জানান। অনুষ্ঠানে মন্ত্রী ৮২ জন মুক্তিযোদ্ধা মাঝে ৪ লাখ ১০ হাজার, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ২৪০টি পরিবারের মাঝে ৭ লাখ ২০ হাজার, নদী ভাঙ্গনের ক্ষতিগ্রস্থ ৭০টি পরিবারের মাঝে ৩ লাখ ৫০ হাজার, মন্ত্রির ব্যাক্তিগত তহবিল থেকে ৬৮ জন দুস্থ নারী পুরষের মাঝে ৪ লাখ টাকা, ৪৫জন দুস্থ সাংস্কৃতিক কর্মীর মাঝে ৭ লাখ ৫৮ হাজার টাকা এবং ১৫টি মসজিদ সংস্কার কাজের জন্য ২ লাখ ও ৪টি মন্দির উন্নয়ন কাজের জন্য ৪০ হাজার টাকার অনুদানের চেক বিতরন করেন।
অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ লোকমান হোসেন মৃধা, পুলিশ সুপার সুভাষ চন্দ্র সাহা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক এরাদুল হক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রভাংশু সোম মহান, শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি খন্দকার নাজমূল ইসলাম লেভী, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, আজমল হোসেন খান ছোট আজম, কোতয়ালী আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, সাধারন সম্পাদক সামচুল আলম চৌধুরী, এছাড়া প্রশাসনের উদ্ধর্তন কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার বিপুল সংখ্যক নারী পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply