ফরিদপুর পুলিশ, বিদ্যুৎ ও পৌরসভার কর্মকর্তাসহ আরও ৮৮ জনের নতুন করে করোনভাইরাস শনাক্ত

মাহবুব পিয়াল,ভয়েস অব ফরিদপুর নিউজ॥ফরিদপুর পুলিশ, বিদ্যুৎ ও পৌরসভার কর্মকর্তাসহ আরও ৮৮ জনের নতুন করে করোনভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত করোনা শনাক্তকরণ ল্যাব  শনিবার রাতে এ তথ্য জানা গেছে। এ নিয়ে ফরিদপুর জেলায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ৭৫৪ জন।
আজ শনিবার এ ল্যাবে মোট ৩৭৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ১১৬ জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত হয়নি ২৫৩ জনের। ইনভেলিড হয়েছে ৭টি। পরীক্ষার হিসেবে শনাক্তের অনুপাত ৩১ দশমিক ৪৩।
এর মধ্যে ফরিদপুরে একটি ফলোআপসহ মোট ৮৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন শনাক্ত হয়েছে ৮৮ জনের। এছাড়া গোপালগঞ্জে ২৬ এবং মাদারীপুর ১ জন রয়েছেন।
ফরিদপুরে নতুন শনাক্তদের মধ্যে রয়েছেন বিআরডিসির একজন কর্মকর্তা, পল্লি বিদ্যুতের তিন কর্মচারি, ওজপাডিকোর এক কর্মচারি, একজন স্বাস্থ্য কর্মী, দুই পুলিশ সদস্য, পৌরসভার পাঁচ কর্মচারি রয়েছেন।
ফরিদপুরে নতুন করে যে ৮৮ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাদের মধ্যে ফরিদপুর সদরে ৩৭ জন, নগরকান্দা উপজেলায় ১১ জন, বোয়ালমারী ও মধুখালীতে ৯জন করে ১৮ জন। ভাঙ্গা ও চরভদ্রাসনে ৮ জন করে, ১৬ জন এবং সালথা ও সদরপুর ৩ জন করে ৬ জন। নতুন আক্রান্তের মধ্যে মধ্যে নারী ৩২ জন এবং পুরুষ ৫৬ জন।
শনিবার পর্যন্ত ফরিদপুরে মোট শনাক্ত ১ হাজার ৭৫৪ জন জনের মধ্যে ফরিদপুর সদরে ৭০৫ জন, ভাঙ্গায় ৩০৮ জন, বোয়ালমারীতে ২৪০ জন, সদরপুরে ১২৩ জন, নগরকান্দায় ১১৫ জন, চরভদ্রাসন ৯০, সালথায় ৬১ জন, আলফাডাঙ্গায় ৫৬ জন এবং মধুখালীতে ৫৬ জন রয়েছেন।
ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, নতুন শনাক্ত হওয়া রোগীর সাথে পুলিশের পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা হয়েছে। ওষুধ ও খাদ্য সামগ্রীর প্রয়োজন হলে জানা মাত্রই আক্রান্তের বাড়িতে পৌঁছে দিচ্ছে পুলিশ।
ফরিদপুরের সিভিল সার্জন মো. ছিদ্দীকুর রহমান বলেন, সব রোগীদের সাথে যোগাযোগ রাখছে স্বাস্থ্য কর্মীরা। কারও সাথে যদি যোগাযোগ করা সম্ভব না হয় তবে সেটা হচ্ছে ঠিকানা সঠিক না থাকা কিংবা মোবাইল নম্বর ভুল থাকার কারনে।

Leave a Reply