সালথায় দু’দল গ্রামবাসির মধ্যে সংঘর্ষ নিহত-১আহত-৩০ বাড়ীতে অগ্নি সংযোগ ভাংচুর লুটপাট পুলিশের গুলি গ্রেফতার-৪

বোরহান আনিস ,সালথাথেকে:
সালথায় দু’দল গ্রামবাসির মধ্যে সংঘর্ষে সরোয়ার মাতুব্বার (৩২) নামে এক যুবক নিহত  হয়েছে। রোববার সকালে উপজেলার গট্টি ইউনিয়নের লক্ষনদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সরোয়ার পাশ্ববর্তী  বনগ্রামের মৃত খাদেম মাতুব্বারের ছেলে। এসময় ব্যাপক বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট ও অগ্নি সংযোগ করে সংঘর্ষকারীরা। পুলিশ, ঘটনাস্থলে গিয়ে রাবার বুলেট ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
স্থানীয়রা ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গট্টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান লাভলুর সাথে এলাকার আধিপত্য বিস্তার করাকে কেন্দ্র করে লক্ষনদিয়া গ্রামের কামাল মাতুব্বারের দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। এই বিরোধের জেরধরে রোববার সকালে চেয়ারম্যান তার সমর্থকদের নিয়ে কামাল মাতুব্বরের সমর্থকদের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে। এসময় হামলা কারীরা প্রতিপক্ষের ৫/৬ টি বাড়ীতে অগ্নি সংযোগ করে। এরপর কামাল মাতুব্বরের সমর্থকেরা পাল্টা হামলা চালায়। এতে উভয় পক্ষের লোকজন দেশিয় অস্ত্র ঢাল,সড়কি,বল্লম, রামদা, ছোরা, ইটপাটকেল নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী চলা এই সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক বসতঘর ভাংচুর, ৪/৫টি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও ব্যাপক লুটপাট করে সংঘর্ষকারীরা। এসময় প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে চেয়ারম্যানের সমর্থক সরোয়ার মাতুব্বার ঘটনাস্থলে মারা যায়। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে সালথা থানা পুলিশ ১৫৭ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৬২টি টিয়ারসেল নিক্ষেপ করেন। এতে উভয় দলের অন্তত ৩০ জন আহত হয়। আহতদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নগরকান্দা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।
ইউপি চেয়ারম্যান লাবলু জানান, কামাল তার লোকজন নিয়ে আমার বাড়ীতে হামলা করে আমার ৪ টি ঘরে অগ্নি সংযোগ করে।
কামাল মাতুব্বর জানান, আমার শশুর আওয়ামীলীগ নেতা তেহারুদ্দিনকে ১ বছর আগে হত্যা করে ঐ লাবলু চেয়ারম্যানের হুকুমে। এই হত্যা মামলা দায়েরের পর থেকে লাবলু চেয়ারম্যান আমাদের লোকজনকে বিভিন্ন সময়ে মারধর করে। আমি এর প্রতিবাদ করায় রোববার সকালে সে তার বাহিনী নিয়ে আমার সমর্থকের কয়েকটি বাড়ীতে ভাংচুর লুটপাট ও অগ্নি সংযোগ করে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে।
ফরিদপুরের সহকারী পুলিশ সুপার এফ এম মহিউদ্দীন বলেন, সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। এ সময় ৪ হামলাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।  লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply