ফরিদপুরের বানভাসি মানুষের পাশে জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট

ভয়েস অব ফরিদপুর রির্পোট ॥
উত্তর অঞ্চলের পর দেশের মধ্যঅঞ্চলে বিভিন্ন নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ফরিদপুরের দেড়শতাধিক গ্রামে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। এই সকল গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ এখন পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে। এই এলাকায় বানভাসি মানুষে শুকনা খাদ্য সহায়তা নিয়ে এগিয়ে এলেন ঝিনাইদাহ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট
আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কাজী আশরাফুজ্জামান। শনিবার দুপুরে তিনি ফরিদপুর সদর উপজেলার ডিক্রীচর ইউনিয়নের বেলেডাঙ্গী এলাকার অধশতাধিক পরিবারের মাঝে নিজ হাতে দূর্গোতদের ওই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিলো চিড়া, গুড়, বিস্কুট এবং খাবার সেলাইন।
ঝিনাইদাহ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কাজী আশরাফুজ্জামান বলেন, নিজের বিবেক তাড়নায় সরকারি ছুটির দিনে সামান্য খাবার নিয়ে বানভাসি মানুষের পাশে চলে এলাম। তিনি বলেন, এভাবে যদি সরকারি কর্মকর্তারা সকলেই এগিয়ে আসে তাহলে দেশের পানিবন্দি মানুষের কিছুটা হলেও উপকার হবে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার দেশে দূর্যোগ মোকাবেলায় যথেষ্ট আন্তরিক, তবে বিত্তবানরা এগিয়ে এলে সরকার ও বিপগ্রস্থ মানুষের সহায়তা হয়। কাজী আশরাফুজ্জামান ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার শুকদেবনগর এলাকা প্রয়াত স্কুল শিক্ষক ও বীরমুক্তিযোদ্ধা কাজী আকরামুজ্জামানের বড় ছেলে। খাদ্য সামগ্রী বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন, ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা আদর্শ কলেজের সহকারি অধ্যাপক আবুল কাশেম, স্থানীয় ডিক্রীচর ইউনিয়নের সদস্য মো. পান্নু শেখ। স্থানীয় ডিক্রীচর ইউনিয়নের সদস্য মো. পান্নু শেখ বলেন, এই ভাবে একজন বিচারক আমাদের পাশে পাবো ভাবতে পারিনি। তিনি বলেন, সরকারি ভাবে আমাদের এলাকার তালিকা নেওয়া হচ্ছে কাল/পশু হয়তো সরকারি সহায়তা স্থানীয়রা পাবে। তবে ওই সরকারি কর্মকর্তা হঠাৎ করেই এলাকার বানভাসি মানুষের পাশে এসে দাড়ালেন তাকে ধন্যবাদ জানাই। কারন এর আগে এভাবে কোনো বিচারককে আমরা পাইনি ।

Leave a Reply