ফরিদপুরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ দশমিক ৭ ডিগ্রী ॥ তাপমাত্রা আরো কমতে পারে।

মাহবুব পিয়াল,ভয়েস অব ফরিদপুর নিউজ ॥ চলমান শৈত্ব প্রবাহে সারা দেশের মতো ফরিদপুরেও তীব্র শীত জেঁকে বসেছে। শনিবার সকাল ৯টায় ফরিদপুর জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০.৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। এদিকে শীতের তীব্রতার কারনে থমকে গেছে কর্মজীবি সাধারন মানুষের দৈনন্দিন কাজ-কর্ম।

সন্ধ্যার পর থেকে ভোর পর্যন্ত শীতের সাথে ঘন কুয়াশার কারনে মানুষ প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না। তবে তীব্র শীতে শহরের মানুষ কোন রকমে দিন কেটে গেলেও বড় বিপদে রয়েছে পদ্ম পাড়ের মানুষ। এছাড়া শীতের তীব্রতায় কর্মহীন হয়ে পড়ছে শ্রমজীবী মানুষ গুলো। জেলার শ্রম বিক্রয় হাটে গিয়ে দেখা গেছে অলস বসে আছে শ্রমিকরা।

ফরিদপুরের আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক সুরজুল আমিন জানান, গত কয়েক দিনে তাপমাত্রা ফরিদপুর অঞ্চলের বেশ কম, আজ শনিবার তাপমাত্রা সর্বনিন্ম রেকর্ড করা হয়েছে ১০.৭ ডিগ্রীতে। এভাবে চলতে থাকলে তাপমাত্রা আরো কমতে পারে।

এদিকে, জেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া পদ্মা, মধুমতি এবং আড়িয়ালখাঁ নদী পাড়ের মানুষ গুলো শীতের দাপটে হিমসিম খাচ্ছে।

ফরিদপুর জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা সহিদুল ইসলাম জানান, জেলার ৮১টি ইউনিয়ন ও ৬টি পৌরসভায় ৪৬০টি করে সরকারি অনুদান শীত বস্ত কম্বল এসেছে। আমরা সেগুলো নয়টি উপজেলাতে বিতরণ শুরু করেছি। এছাড়া জরুরী বরাদ্দ হিসাবে আরো ৯ হাজার ১ শ কম্বল পেয়েছি।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার জানান, গতরাতেও শহরের রাস্তায় কাটানো হতদরিদ্র মানুষের মাঝে কম্বল বিতরন করা হয়েছে। এছাড়া জেলার চরাঞ্চল গুলোতে অগ্রাধীকার হিসেবে আগে শীত বস্ত বিতরন করছি। তিনি জানান, আমাদের পর্যাপ্ত শীত বস্ত রয়েছে, শীতের কারনে কেউ কষ্টে থাকবে না।

Leave a Reply