ফরিদপুরে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে বন্যার্তদের পাশে ডিসি অতুল সরকার

মাহবুব পিয়াল,ভয়েস অব ফরিদপুর নিউজ ।। ফরিদপুরে বন্যা কবলিতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে জেলা প্রশাসন। গত কয়েকদিন যাবৎ জেলা প্রশাসক অতুল সরকারের নির্দেশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা দূর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ সহ নানা সহায়তা করে আসছিলেন।

এবার জেলা প্রশাসক অতুল সরকার নিজেই বন্যা কবলিতদের মাঝে হাজির হয়ে তাদের হাতে তুলে দিলেন খাদ্য সামগ্রী। এই দুর্যোগকালীন সময়ে জেলা প্রশাসককে কাছে পেয়ে তার হাত থেকে ত্রাণ পেয়ে খুশী দূর্গত মানুষ।

সোমবার (২০ জুলাই) সদর উপজেলার নর্থচ্যানেল ইউনিয়নের গোলডাঙ্গীর চর গ্রামে ৫ শতাধিক বন্যার্ত পরিবারের মাঝে শুকনো খাবার, পানি রাখার ক্যান ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবেলট বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।

করোনা ও বন্যার সঙ্কট ধৈর্য্য নিয়ে মোকাবেলা করার আহবান জানিয়ে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, এই দূর্যোগকালীন সময়ে প্রচুর পরিমাণে সরকারী সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। বন্যায় কোনো মানুষ না খেয়ে থাকবে না, পানিবন্দী সকল মানুষের কাছে ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, বন্যা কবলিতদের যাতে কোনো সমস্যা না হয় সেজন্য সংশ্লিষ্ট ইউএনওদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তারা রাতদিন দূর্গত মানুষের পাশে থেকে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমেও পানিবন্দি মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। জেলা প্রশাসন সব সময় দূর্গত মানুষের পাশে রয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ আসলাম মোল্লা, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ রাজ্জাক মোল্লা, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল আলম, নর্থচ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তাকুজ্জামান প্রমুখ।

ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা জানান, ডিসি স্যার নিজে উপস্থিত থেকে নর্থচ্যানেল ইউনিয়নের গোলডাঙ্গীর চর গ্রামে ৫শতাধিক বন্যা কবলিত মানুষের মাঝে শুকনো খাবার, পানি রাখার ক্যান ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবেলট বিতরণ করেন। তিনি আরো জানান, এছাড়া আলিয়াবাদ ইউনিয়নের বন্যা কবলিত ৫শতাধিক মানুষকে খিচুরি রান্না করে খাওয়ানো হয়। ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন সুলতানা জানান, উপজেলার গাজীরটেক ইউনিয়নের বন্যা দূর্গত সাড়ে ৫শ’ পরিবারের মাঝে চাল বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য ইউনিয়নের বন্যা কবলিত মানুষের মাঝেও শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

সদরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পূরবী গোলদার জানান, উপজেলার আকোটেরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্র বন্যা কবলিত ১শ পরিবারের মাঝে শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, আমি প্রতিনিয়ত ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের খোঁজ খবর রাখাসহ বিভিন্ন এলাকা সরেজমিনে ঘুরে তাদের মাঝে ত্রাণ কার্যক্রম বিতরণ অব্যাহত রেখেছি।

প্রসঙ্গত, আকস্মিক পদ্মার পানি বৃদ্ধির ফলে ফরিদপুর সদর, চরভদ্রাসন এবং সদরপুর উপজেলায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় ২৫ হাজার পরিবার। চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে তাদের।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকারের নির্দেশে গত কয়েকদিন যাবৎ বন্যা দূর্গতদের পাশে থেকে তাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুম রেজা, সদরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূরবী গোলদার ও চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন সুলতানা।

ট্রলারে ঘুরে ঘুরে বন্যা কবলিতদের আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করছেন ইউএনও বৃন্দ। দূর্গতদের মাঝে চাল, ডাল, পানি বিশুদ্ধকরন ট্যাবলেট ও শুকনা খাবার সামগ্রী বিতরণ করছেন, এমনকি রান্নার ব্যবস্থা করে দূর্গতদের মুখে আহারও তুলে দিচ্ছেন কর্মকর্তাবৃন্দ।

Leave a Reply