ফরিদপুরে জঙ্গিবাদ নির্মুল ও করোনা প্রতিরোধে আলেমদের সাথে সদর উপজেলা প্রশাসনের মত বিনিমিয়

ভয়েস অব ফরিদপুর নিউজ।। ফরিদপুরে ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় রাখতে মাদক সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূল এবং আসন্ন শীতকালে করোনা ভাইরাসের সম্ভাব্য সংক্রমন প্রতিরোধে আলেম – ওলামাবৃন্দ ও সকল মসজিদের ইমামবৃন্দের সাথে সদর উপজেলা প্রশাসনের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বুধবার সকাল ১১টায় সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ হল রুমে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুম রেজার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক মোঃ মনিরুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, ফরিদপুর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ পরিচালক শেখ আকরামুল হক, জামিয়া আরাবিয়া শামছুল উলুম ইসলামিয়া মাদ্রাসার মোহতামিম মুফতি কামরুজ্জামান। এছাড়া অনুষ্ঠানে সদর উপজেলার শতাধিক আলেম ও মসজিদের ইমামগণ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা। তিনি বলেন, মহামারী করোনা এখনও নির্মুল হয়নি। আসন্ন শীতে দ্বিতীয় ধাপে করোনার প্রকোপ বাড়তে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে। এই করোনা থেকে মুক্তি পেতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রতি ওয়াক্ত নামাজ পরে আলেম-ওলামা ও মসজিদের ইমামদের দোয়া প্রার্থনা করার উদাত্ত আহবান জানিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতি প্রতিরোধে আলেম-ওলামা, মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিনসহ ধর্মীয় নেতাদের অনন্য ভূমিকা রাখতে হবে। মাদক, সন্ত্রাস ও দুর্নীতি নির্মূলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাজ করছে। ধর্মের সঠিক যুক্তি দিয়ে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের পথ থেকে মানুষকে ফেরাতে হবে। মাদকের বিষাক্ত ছোবলে আক্রান্ত যুবসমাজ, এদের রক্ষা করতে হবে। অনিময়–দুর্নীতির বিরুদ্ধে সবাইকে প্রতিরোধ গড়তে হবে। মসজিদের ইমামরা হলেন সামাজের নেতা। দেশ, দেশের মানুষকে, ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে রক্ষায় সবাইকে কাজ করতে হবে। ধর্মীয় অনুভূতি ও মূল্যবোধে আঘাত করে- এমন কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে সরকার সবসময় সতর্ক রয়েছে বলে জানিয়েছেন।

প্রধান অতিথি বলেন, আপনারা যারা সম্মানিত ইমাম মহোদয় আছেন তারা হচ্ছেন নেতা। আপনাদের অবস্থান থেকে এই সন্ত্রাস, জঙ্গি, মাদক, ধর্ষণ বিষয়ে সচেতনতামুলক প্রচার করতে পারেন। প্রতি শুক্রবার জুম্মার খুতবার সময় এ বিষয়গুলো মুসল্লিদের মাঝে তুলে ধরতে আপনাদের জন্য সহজ হয়। আমাদের ধর্মেও সন্ত্রাস, জঙ্গি, মাদক ও দূর্নীতি এ জাতীয় বিষয়াদি নিষিদ্ধ। মাদক শুধু একটি ব্যাক্তিই নয় বরং একটি পরিবারকে ধ্বংস করে দেয় আর জঙ্গি বা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড দেশের পাশাপাশি বিশ্বেও বদনাম ছড়িয়ে দেয়। করোনার প্রকোপ এখনও রয়েছে। আপনারা করোনার বিষয়ে প্রতি জুম্মার খুতবার মাধ্যমে সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করবেন।

Leave a Reply