ফরিদপুরে নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিবস জাতীয় শিশুদিবস পালিত

ভয়েস অব ফরিদপুর ॥
শাখাওয়াত হোসেন সহিদ,ভয়েস অব ফরিদপুর রির্পোট ॥
‘বাঙালির জন্য জেল জুলুম অত্যাচার, নির্যাতন, নিপিড়ন সহ্য করেছেন বঙ্গবন্ধু। বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীন দেশ দিয়ে গেছেন। এ দেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত সত্যিকারের সোনার বাংলা হিসেবে আমাদের গড়ে তুলতে হবে।’
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আজ ১৭ মার্চ শনিবার ফরিদপুরে এক শিশু সমাবেশে বক্তব্য দিতে গিয়ে এ কথাগুলো বলেন বক্তারা। বেলা ১০টার দিকে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে এ শিশু সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শিশু প্রভাতী নূর। বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া, পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এরাদুল হক, সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ মোশার্রফ আলী, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুবল সাহা, জেলা শিশু সংগঠক আজিজুল হক।
বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ এক সুত্রে গাঁথা। বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামের ফসল আজকের স্বাধীন দেশ, মুক্তি মানচিত্র ও পতাকা। এ কারনে বঙ্গবন্ধুকে বলা হয় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি। বাঙালির জন্য জেল জুলুম অত্যাচার, নির্যাতন, নিপিড়ন সহ্য করেছেন বঙ্গবন্ধু। বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীন দেশ দিয়ে গেছেন। এ দেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত সত্যিকারের সোনার বাংলা হিসেবে আমাদের গড়ে তুলতে হবে।
সকাল ৮টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে গিয়ে শেষ হয়। এ ছাড়াও শহরের থানারোডস্থ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে রাজেন্দ্র কলেজ সংলগ্ন মাঠে গিয়ে শেষ হয়।
সকাল ৯ টার দিকে রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মৃধা, রাজেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ মোশার্রফ আলী, পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আইভি মাসুদ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকারসহ বিভিন্ন সংগঠণ ও ব্যাক্তিবর্গ পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।
এছাড়া শহরের কমলাপুরস্থ শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে (বালক) দুপুর ১২টায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিশুদের নিয়ে কেককেটে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালন করেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া । উপ- পরিচালক বিপ্লব কুমার সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জেলা সমাসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আলী আহসান। এছাড়া সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
ফরিদপুরে নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিবস জাতীয় শিশুদিবস পালিত ভয়েস অব ফরিদপুর ॥
শাখাওয়াত হোসেন সহিদ,ভয়েস অব ফরিদপুর রির্পোট ॥
‘বাঙালির জন্য জেল জুলুম অত্যাচার, নির্যাতন, নিপিড়ন সহ্য করেছেন বঙ্গবন্ধু। বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীন দেশ দিয়ে গেছেন। এ দেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত সত্যিকারের সোনার বাংলা হিসেবে আমাদের গড়ে তুলতে হবে।’
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আজ ১৭ মার্চ শনিবার ফরিদপুরে এক শিশু সমাবেশে বক্তব্য দিতে গিয়ে এ কথাগুলো বলেন বক্তারা। বেলা ১০টার দিকে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে এ শিশু সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শিশু প্রভাতী নূর। বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া, পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এরাদুল হক, সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ মোশার্রফ আলী, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুবল সাহা, জেলা শিশু সংগঠক আজিজুল হক।
বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ এক সুত্রে গাঁথা। বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামের ফসল আজকের স্বাধীন দেশ, মুক্তি মানচিত্র ও পতাকা। এ কারনে বঙ্গবন্ধুকে বলা হয় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি। বাঙালির জন্য জেল জুলুম অত্যাচার, নির্যাতন, নিপিড়ন সহ্য করেছেন বঙ্গবন্ধু। বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীন দেশ দিয়ে গেছেন। এ দেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত সত্যিকারের সোনার বাংলা হিসেবে আমাদের গড়ে তুলতে হবে।
সকাল ৮টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে গিয়ে শেষ হয়। এ ছাড়াও শহরের থানারোডস্থ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে রাজেন্দ্র কলেজ সংলগ্ন মাঠে গিয়ে শেষ হয়।
সকাল ৯ টার দিকে রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মৃধা, রাজেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ মোশার্রফ আলী, পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আইভি মাসুদ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকারসহ বিভিন্ন সংগঠণ ও ব্যাক্তিবর্গ পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।
এছাড়া শহরের কমলাপুরস্থ শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে (বালক) দুপুর ১২টায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিশুদের নিয়ে কেককেটে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালন করেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া । উপ- পরিচালক বিপ্লব কুমার সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জেলা সমাসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আলী আহসান। এছাড়া সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

Leave a Reply