ফরিদপুরে প্রেমের দ্বন্দ্বে কলেজ ছাত্র খুন ॥ VOICE OF FARIDPUR

ভয়েস অব ফরিদপুর নিউজ ॥
ফরিদপুর শহরে প্রেমের দ্বন্দ্বে কাজী মুনসিরাতুল রহমান ওরফে আলিফ (১৮) নামে এক কলেজ ছাত্র খুন হয়েছে। অপরদিকে ফরিদপুরের মধুখালীতে গতকাল সন্ধ্যায় এক প্রেমিককে না পেয়ে সাবেরা খাতুন নামে এক প্রেমিকা আতœহত্যা করেছে।
এ ঘটনায় আহত চিকিৎসাধীন আলিফের সহপাঠি সাধন কীর্তনিয়া জানান, আলিফের সাথে সরকারি সারদা সুন্দরী কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু রাজেন্দ্র কলেজের সামজ বিজ্ঞান বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র আবির নামে আরেক যুবকের সাথে ওই ছাত্রীর পূর্বে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। এ নিয়ে আলিফ আর আবির এর মধ্যে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয় ফেসবুকে পোষ্টকে কেন্দ্র করে। গত বুধবার সন্ধ্যায় এ দ্বন্দ্বের মীমাংসা করার কথা বলে আলিফকে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের শহর ক্যাম্পাসে ডেকে পাঠায় আবির। সন্ধ্যায় আলিফ ও সাধন রিকশাযোগে রাজেন্দ্র কলেজে এলাকায় গেলে আবির ও তার সহযোগীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে আলিফ ও সাধনকে এলোপাতাড়ি কোপায়। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় দুজনেকে প্রথমে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে ও পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে আলিফের অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য আ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকায় নেওয়ার পথে সাভার এলাকায় এনাম মেডিকেল কলেজে আলিফ মারা যায়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফরিদপুর কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ এএফএম নাসিম জানান, এ ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে আবির ও সাধনকে পুলিশ হাসপাতালে নজরদারিতে রেখেছে। এ ব্যাপারে মৃতের পরিবার আসলে একটি হত্যা মামলা নেয়া হবে।
অপরদিকে ফরিদপুরের মধুখালীর পৌরসভার গুনধারদিয়া এলাকায় গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় এক প্রেমিককা তার প্রেমিককে না পেয়ে আতœহত্যা করেছে। নিহতের নাম সাবেরা খাতুন(১৪)। সে ওই এলাকার মোঃ শামচুল মোল্লার কন্যা।
নিহতের ভাই আশিক জানান, আমরা কেউ বাড়ী ছিলাম না সন্ধ্যার দিকে। পরে বাড়ীতে এসে দেখি আমার বোন ঘড়ের ভিতর আড়ার সাথে তার দেহ ঝুলছে। পরে তাকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে। তিনি জানান, বাড়ীর পাশে রিহান নামে এক ছেলের সাথে প্রেমের সর্ম্পক ছিলো। রিহানের পরিবার এটা মেনে নিতে পারছিলো না।
এদিকে খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

Leave a Reply