ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত দেশ সেরা জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া ॥ ভয়েস অব ফরিদপুর

ভয়েস অব ফরিদপুর রির্পোট ॥
“সুশানে গড়ি সোনার বাংলা” এই স্লোগানকে সামনে রেখে জেলা প্রশাসনকে জনবান্ধব করার প্রত্যয়ে গত বছর ১৫ সেপ্টেম্বর ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক হিসাবে উম্মে সালমা তানজিয়া তার কর্মস্থলে যোগদান করেন। ৫ ডিসেম্বর তাঁর যোগদানের ১বছরের কিছু বেশী সময় পর তিনি নাগরিক সেবায় দেশের সেরা জেলা প্রশাসক নির্বাচিত হয়েছেন।
গত ৫ ডিসেম্বর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিবের বরাত দিয়ে একই দপ্তর হতে সিনিয়র সহকারী সচিব মোছাঃ শিরিন আক্তার স্বাক্ষরিত এক চিঠির মধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। চিঠিতে জানানো হয় ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড -২০১৭ পুরুস্কার প্রদানের জন্য আই,সি,টির মাধ্যমে নাগরিক সেবায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া কে দেশ সেরা জেলা প্রশাসক(নাগরিক সেবা) নির্বাচন করা হয়েছে।
এর আগে তাঁর যোগদানের ঠিক এক বছরের মাথায় তিনি ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের শ্রেষ্ঠ জেলা প্রশাসক-২০১৭ হিসাবে স্বীকৃতি পান। শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য তাকে এই সন্মাননা প্রদান করা হয়েছিল।
তিনি যোগদানের পর থেকে এই এক বছরে ,প্রশাসনকে জনবান্ধব করার লক্ষ্যে নানামূখী কর্মসূচী গ্রহণ করেন।জেলা ই-সেবা কেন্দ্র, ইউডিসি,হেল্প ডেস্ক, জয়িতা অঙ্গন ,ডিজিটাল হাজিরাসহ নানা ধরনের জনসেবা মূলক কর্মসূচী চালু ও সেবার মান উন্নয়নসহ সকল ক্ষেত্রে গতি সঞ্চয় করেন। ছাত্র-ছাত্রীদের আধুনিক ও নৈতিক শিক্ষায় সুশিক্ষিত করে গড়ে তোলার জন্য ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবকদের সমন্বয়ে নানামুখী কর্মসূচি গ্রহণ করেন।২৫০টির অধিক স্কুল ও কলেজে মাল্টি মিডিয়া ক্লাস রুম প্রতিষ্ঠা করেছেন।
এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া প্রতিবেদক কে বলেন, ‘এস ডি জি বাস্তবায়নে সরকার ঘোষিত ভিশন ২০২১ ও ভিশন ২০৪১ সফল করার লক্ষে গুণগত জনসেবা ও জনবান্ধব প্রশাসন গড়ে তুলতে আমরা বধ্য পরিকর।ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে সকল নাগরিকে ই-সেবার আওতায় আনার জন্য টিম ফরিদপুর নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে।
ফরিদপুর জেলার উন্নয়নের স্বার্থে সততা, স্বচ্ছতা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যাবার প্রত্যয় ব্যক্ত করে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘ফরিদপুর জেলার ঐতিহ্যকে ধারণ করে বাংলাদেশের প্রথম সারির জেলায় রূপান্তরের চেষ্টা করবো। ফরিদপুরের জেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে নিয়ে একটি টিম হিসেবে এ কাজ করে যাচ্ছি।ইতিমধ্যে ই-নথি কার্যক্রমে ফরিদপুর জেলা সারা দেশের মধ্যে টানা কয়েক মাস ১ম স্থানে রয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে ফরিদপুর জেলা যেন অগ্রণী ভূমিকা রাখে সে লক্ষে আমার সার্বিক প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। মহান আল্লাহ আমাদের সুযোগ দিয়েছেন জনগণের সেবা করার, সেই সুযোগকে কাজে লাগাতে হবে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, ফরিদপুর-কে আরো অধিকতর সেবামূলক ও জনবান্ধব প্রতিষ্ঠানে পরিণত করার জন্য জেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীক দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। আধুনিক ফরিদপুরের রূপকার ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মাননীয় মন্ত্রী, স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় মহোদয়ের সার্বিক নির্দেশনা আমাদের এ চলার পথকে সুগম ও মসৃন করেছে’ ।
উম্মে সালমা তানজিয়া রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলায় জন্ম গ্রহণ করেন। স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে কৃতিত্বের সাথে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সমাপ্ত করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। তিনি ১৯৯৮ সালে বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারে সহকারী কমিশনার হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় যোগদান করেন। এরপর বিভিন্ন জেলায় সহকারী কমিশনার, সহকারী কমিশনার (ভূমি), জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব, উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সিরাজগঞ্জ জেলায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৩ সালের মার্চে উপসচিব হিসেবে পদোন্নতি পান। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এ টু আই) এ কর্মরত ছিলেন। সর্বশেষ তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

Leave a Reply