বঙ্গবন্ধুকে অনুসরন করে সোনার বাংলাগড়ার প্রত্যয়ে ফরিদপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত

মাহবুব পিয়াল,ভয়েস অব ফরিদপুর নিউজ ॥‘বঙ্গবন্ধু আন্দোলন সংগ্রাম করে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছেন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তিনি যখন দেশের উন্নয়নের কাজে আত্ম নিয়োগ করছিলেন তখন দেশি ও বিদেশী পরাজিত শক্তি তাকে নির্মন ভাবে হত্যা করে। এ হত্যাকান্ডের পর পরিকল্পিতভাবে দেশকে আবার ভিন্নখাতে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমান শেখ হাসিনার সরকার দেশকে আবার স্বাধীনতার চেতনায় ফিরিয়ে আনে।
ফরিদপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী জাতীয় শোক দিবস হিসেবে জেলা প্রশাসক কর্তৃক জুম অ্যাপসের মাধ্যমে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ অভিমত ব্যক্ত করেন বক্তারা।
১৫ আগষ্ট  শনিবার সকাল ১০টায় এ সভা শুরু হয়ে চলে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। সভায় সভাপতিত্ব করেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।
আলোচনায় অংশ নেন ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, অধ্যাপক মো. শাহজাহান, সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ মো. মোশার্রফ আলী, সরকারি ইয়াছিন কলেজের অধ্যক্ষ শিলা রানী মন্ডল, সরকারি রাজেন্দ্র করেজের ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রিজভী জামান, ব্লাস্টের স্বমন্বয়কারী শিপ্রা গোশ্বামী প্রমুখ।
এর আগে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সকাল ৮টায় ঐতিহাসিক অম্বিকা হল ময়দানে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্প স্তবক অর্পন করে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। ফরিদপুর প্রশাসক অতুল সরকার, পুলিশ সুপার মোঃ আলিমুজ্জামান, জেলা আওয়ামীলীগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, কোতয়ালী আওয়ামীলীগ, শহর আওয়ামীলীগ ও আওয়ামীলীগের বিভিন্ন সহযোগী এবং অঙ্গ সংগঠন, ফরিদপুর পৌরসভা, ফরিদপুর প্রেসক্লাব ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো পুষ্পস্তবক অর্পণ করে জাতির পিতার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।
এ সময় ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, পুলিশ সুপার মো. আলীমুজজামান, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, পৌর মেয়র শেখ মাহতাব আলী মেথু, ফরিদপুর জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সদস্য সচিব আই ভি মাসুদ উপস্থিত ছিলেন। এসময় অম্বিকা ময়দান লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়।

এর আগে বঙ্গবন্ধুসহ তাঁর পরিবারের ও ১৫ আগস্টে নিহতদের আত্মার সদগতি কামনা করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। পরে মোনাজান ও দোয়া করা হয়।
সকাল সোয়া ৭টায় এ জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা, সহ-সভাপতি শামিম হক, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ঝর্না হাসান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আইভি মাসুদ, প্রমুখ।
এর আগে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি ভবনের শীর্ষে জাতীয় পতাকা অর্ধ নমিত রাখা হয় এবং কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে হাসিবুল হাসান লাবলু স্কোয়ারে দোয়ার আয়োজন করা হয়। এখানে দোয়ার কথা বলা হলেও কার্যত একটি জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। কয়েক হাজার লোক এ অনুষ্ঠানে অংশ নেন। দীর্ঘদিন ধরে ফরিদপুরের লাঞ্ছিত বঞ্চিত নেতাদের একটি মিলন মেলা হয়ে ওঠে ওই সভাস্থল। বক্তারা বিগত ১২ বছর ধরে তাদের লাঞ্ছনা ও বঞ্ছনার কথা তুলে ধরেন।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দুপুরে জেলা আওয়ামী লীগ ও তাদের সহযোগী বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে শহরের কবির বাগ, আওয়ামী লীগের কার্যারয়ের সামনে, অম্বিকা ময়দান ও চর কমলাপুর এলাকায় দুপুরে খাবার বিতরণ করা হয়।
বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে রুহের মাগফেরাত কামনা করে একশত আলেম দিয়ে একশতবার পবিত্র কোরআন লরীফ খতম ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া বিভিন্ন মন্দির ও গির্জায় বিশেষ মোনাজাতের আযোজন করা হয়।

Leave a Reply