মধুখালির নিখরিয়া গ্রামে সংরক্ষণশীল কৃষি প্রযুক্তির মাধ্যমে গম উৎপাদনের উপর কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার ঃ
টঝঅওউ-এর আর্থিক সহায়তায় আর্ন্তজাতিক ভূট্টা ও গম উন্নয়ন কেন্দ্র (সিমিট), আইডিই বাংলাদেশ এবং স্থানীয় সংস্থা সোসাইটি ডেভেলপমেন্ট কমিটি (এসডিসি) এর মাধ্যমে বৃহত্তর ফরিদপুর অঞ্চলে সিসা-এমআই প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। রবিবার (৫মার্চ ) সিমিট বাংলাদেশ, স্থানীয় কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর ও সহযোগী সংস্থা এসডিসি এর যৌথ উদ্যোগে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার নিখরিয়া গ্রামে সংরক্ষনশীল কৃষি প্রযুক্তির মাধ্যমে গম উৎপাদনের উপর কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিবিদ জি. এম. আব্দুর রউফ, উপপরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ফরিদপুর । এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিবিদ ড: সেলিম আহমেদ, উর্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, সরোজমিন গবেষণা বিভাগ, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট, ফরিদপুর। সিমিট বাংলাদেশ ফরিদপুর অঞ্চলের হাব কো-অর্ডিনেটর কৃষিবিদ সুব্রত সরকারের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন কৃষি উন্নয়ন কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো: জাকারিয়া হাসান, ব্যাবসা উন্নয়ন কর্মকর্তা মো: রওশন আনিস, স্থানীয় উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাসহ প্রকল্পের অন্যান্য কর্মকর্তা বৃন্দ। কৃষিবিদ মো: দিদারুল আলম, মাঠ সমন্বয়কারী এসডিসি এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কৃষক সমাবেশে আগত শতাধিক কৃষক-কৃষানী ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
সমাবেশে সংরক্ষনশীল কৃষি উন্নয়নে কৃষি যন্ত্রপাতি যেমন- পাওয়ার টিলার চালিত বীজ বপন যন্ত্র, ফসল কাটার যন্ত্র রিপার এর গুরুত্ব ও ব্যবহার সম্পর্কে মতবিনিময় করা হয়। কৃষি যান্ত্রিকীকরনের মাধ্যমে স্থায়ীত্বশীল কৃষি বাস্তবায়নের জন্য কৃষকদের প্রতি আহবান জানান জনাব সুব্রত সরকার এবং প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কৃষিবিদ জি. এম. আব্দুর রউফ কৃষি যান্ত্রীকিকরনে সিমিটের উদ্যোগের প্রশংসা করে বলেন সংরক্ষনশীল কৃষি উন্নয়ন ছাড়া কৃষিকে এগিয়ে নেওয়া যাবে না এবং কৃষি যান্ত্রিকীকরনের মাধ্যমেই সংরক্ষনশীল কৃষি বাস্তবায়ন করতে হবে। সমাবেশে সংরক্ষণশীল কৃষি প্রযুক্তির মাধ্যমে ভূট্টা , গম, মুসুর ও পাট ইত্যাদি উৎপাদন প্রযুক্তি সরেজমিনে উপস্থিত কৃষকদেরকে দেখানো হয় এবং তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেয়া হয়। কৃষকগন কম খরচে কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহারের মাধ্যমে ফসল চাষে আগ্রহী হন।

Leave a Reply